তিনটি কবিতা

সুকল্প চট্টোপাধ্যায়


শূন্যতা খাই বহুদিন

 

শূন্যতা খাই বহুদিন, পোড়াই জীবনজোছনা

মৃত্যুরাখাল তার নিজস্ব মহাকাল মাখে

শোক ক্লান্তি মাখে, নিভু আঁচে

জাগিয়ে রাখে সন্ধ্যার ধ্রুবতারা

ডানায় ডানায় অশ্রুপথ ভেসে যায়

রক্তাক্ত জনপদের আকাশে লীলা করে

ছড়িয়ে ছিটিয়ে দেয় ক্রোধানল, অন্তরঙ্গ

বৃষ্টি দুয়ে ধুয়ে দেয় বুকের উঠোন

শূন্যতা খাই বহুদিন, পোড়াই জীবন জোছনা

মৃত্যুরাখাল তার নিজস্ব ক্ষণকাল মাখে ডেকে ওঠে

নিরর্থ বসন্তে ক্ষতপথ

        সমকাল চাটে

 

 

 

করতল

 

করতল থেকে উড়ে যায় মেঘ

বিজন সে ভেসে যাওয়ার সুর

বন্দি পাখির পালকটুকু ছুঁয়ে

ঝরে পড়ে চোখের পাতায়

তার জন্য জলও বাতাসা ঘুম রাখা আছে

 

 

দপ নিভে থাকে

 

সামান্য দুদানা পথ ছড়িয়ে আছে

পুঁথির পাতায় সে কাক, সেই পথ ঠোকরায়

অক্ষরধামে শরীর থেকে গড়িয়ে পড়ে রক্ত

বেলা পড়ে এলে, পুঁথি ভাঁজ রে তাকে তুলে রাখ

খণ্ড সুরের পথ, রক্ত

                সংসারের আলোচালে দপ নিভে থাকে

  

    

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *